Breaking News

শরীয়তপুরে আওয়ামী লীগ নেতা হাবীবুর ও ভাইকে হত্যায় মৃত্যুদণ্ড

শরীয়তপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্মসচিব ও জেলা ও দায়রা জজ আদালতের প্রাক্তন পিপি অ্যাডভোকেট হাবিবুর রহমান ও হাবিবুর রহমানের ভাই মনির হোসেন মুন্সী হত্যা মামলায় ছয় জনকে মৃত্যু দন্ড ও চারজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং তিনজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এ রায়ে সন্তুষ্ট নয় নিহতদের পরিবার ও দলীয় নেতাকর্মীরা।

দীর্ঘ বিশ বছর পর এই মামলার রায় দিয়েছে আদালত। এ রায়ে ছয় আসামির ফাঁসি, চারজনের যাবজ্জীবন ও তিন আসামির বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে, বাকি চল্লিশ জনকে খালাস দেওয়া হয়েছে।

অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মো। শওকত হোসেন ২১ শে মার্চ রোববার 2.30 pm দণ্ডিত আসামি, রাষ্ট্রীয় পরামর্শ, আসামি ও বাদীর পক্ষে আইনজীবী উপস্থিত হয়ে এই রায় ঘোষণা করেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- শাহিন কোতওয়াল, শহীদ কোতোয়াল, শফিক কোতওয়াল, শহীদ তালুকদার, সোলায়মান সরদার ও মজিবর রহমান তালুকদার। যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত আসামিরা হলেন- সরোয়ার হোসেন বাবুল তালুকদার, ডাবলু তালুকদার, বাবুল খান ও টোকাই রশিদ। বিভিন্ন মেয়াদে ও জরিমানা করা দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- মন্টু তালুকদার, আসলাম সরদার ও মজনু জাকির হোসেন।

২০০১ সালের ৫ অক্টোবর বিকেলে অ্যাডভোকেট হাবিবুর রহমান ও তার ভাই মনির হোসেন মুন্সিকে তাদের বাড়িতে গুলি করে হত্যা করা হয়। নিহত হাবিবুর রহমানের স্ত্রী জিন্নাত রহমান ৮ ই অক্টোবর পালং মডেল থানায় ৫৩ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেছেন

মামলায় রাষ্ট্রের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মির্জা হজরত আলী বলেছেন, এই মামলায় people জনকে মৃত্যুদণ্ড, ৪ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ৩ জনকে বিভিন্ন মেয়াদ ও জরিমানা করা হয়েছে। এই মামলার বাদী যদি এই রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে যায়, আমি রাজ্যকে সহযোগিতা করব।

About admin

Check Also

গোলাপের মত মানুষ

আমরা বিভিন্ন সময়ে গোলাপের সঙ্গে তুলনা দেই যে গোলাপের শুভেচ্ছা গোলাপের মতো হতে চাই আসলে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *